মঠবাড়িয়ায় মন্দির নির্মাণকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষ মুখোমুখি - মঠবািড়য়া সমাচার

শিরোনাম

Post Top Ad

Sunday, 24 November 2019

মঠবাড়িয়ায় মন্দির নির্মাণকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষ মুখোমুখি

মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার শাখারীকাঠী গ্রামে বিরোধীয় জমিতে মন্দির নির্মাণকে কেন্দ্র করে দু’গ্রুপ মুখোমুখি অবস্থানে। ফলে যে কোন সময় ঘটতে পারে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ। এলাকাবাসী সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার শাখারীকাঠী গ্রামের মৃত হরিদাস বৈরাগীর পুত্র দুলাল বৈরাগী ও কুমুদ চন্দ্র মিস্ত্রীর ছেলে ক্ষিতিশ চন্দ্র মিস্ত্রী অংশিদারিত্ব জমিতে একটি মন্দির নির্মাণ করে প্রায় ১৫ বছর ধরে ধর্মীয় উৎসব পালন করে আসছিল। গত কয়েক বছর ধরে মন্দিরের জমি নিয়ে দুলাল ও ক্ষিতিশের মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়। এরপর ২০১৬ সালে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান হিন্দু সম্প্রদায়ের গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ নিয়ে জমির পরিমাপ করিলে মন্দিরটি দুলাল বৈরাগীর জমির মধ্যে পরে। ওই সময় ক্ষিতিশ তার প্রাপ্ত জমিতে একটি মন্দির নির্মাণ করে। কিন্তু বর্তমানে ক্ষিতিশ পুরানো মন্দিরটি তার দাবী করে ওই মন্দিরে পাকাস্থাপনা নির্মাণ কাজ শুরু করেন। এ নিয়ে দু’গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়াসহ উত্তেজনা বিরাজ করে। পরবর্তীতে দুলাল বৈরাগী মঠবাড়িয়া বিজ্ঞ নির্বাহী আদালতে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। কিন্তু ক্ষিতিশ আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে পুনরায় মন্দিরের কাজ শুরু করলে দু’গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। মন্দির নির্মাণ কাজ বন্ধ করার জন্য সম্প্রতি দুলাল বৈরাগী মঠবাড়িয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।অভিযুক্ত ক্ষিতিশ মিস্ত্রী জানান, পূজা কমিটির নির্দেশেই আমি মন্দির নির্মাণ কাজ করছি। মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আবু জাফর মোঃ মাসুদ্দুজ্জামান জানান, অভিযোগ পাওয়ার পর ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিলো। দু’পক্ষকেই শান্ত থাকার জন্য বলা হয়েছে এবং বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

No comments:

Post a comment

Post Top Ad

Responsive Ads Here