মঠবাড়িয়ায় ৩ রা নভেম্বর জেল হত্যা দিবস : জাতীয় চার নেতার প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা ও আলোচনা সভা - মঠবািড়য়া সমাচার

শিরোনাম

Post Top Ad

Monday, 4 November 2019

মঠবাড়িয়ায় ৩ রা নভেম্বর জেল হত্যা দিবস : জাতীয় চার নেতার প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা ও আলোচনা সভা


মঠবাড়িয়া প্রতিনিধিঃ পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় ৩ রা নভেম্বর জেল হত্যা দিবস : জাতীয় চার নেতার প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদন করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ,যুবলীগ,ছাত্রলীগ মঠবাড়িয়া উপজেলা শাখা। উক্ত অনুষ্টানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও শহীদ পরিবারের সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধা ফারুকুজ্জামান, স্বাগতম বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি একেএম সেলিম মিয়া, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল হক সেলিম মাতুব্বর, সাংগঠনিক সম্পাদক লোকমান হোসেন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ফজলুল হক মনি, সাংবাদিক মিজানুর রহমান মিজু,আবু হানিফ খান, সাধারণ সম্পাদক নজরুল, পৌর যুবলীগের সভাপতি তৌহিদ মাসুম, পৌর শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি গোপাল রায়,ছাত্রলীগের সভাপতি শরিফুল রাজু প্রমুখ, শোকাবহ জেলহত্যা দিবস। মানব সভ্যতার ইতিহাসে কলঙ্কময়, রক্তঝরা ও বেদনাবিধুর একটি দিন।
১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর  রহমানকে সপরিবারে হত্যার পর ৩রা নভেম্বর মধ্যরাতে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের নির্জন প্রকোষ্ঠে চার জাতীয় নেতা বাংলাদেশের প্রথম অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমেদ, মন্ত্রিসভার সদস্য ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলী এবং এএইচএম কামরুজ্জামানকে নির্মম ও নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়।
একাত্তরের স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের শত্রুরা সেদিন দেশ মাতৃকার সেরা সন্তান জাতীয় এই চার নেতাকে শুধু গুলি চালিয়েই ক্ষান্ত হয়নি, কাপুরুষের মতো গুলিবিদ্ধ দেহকে বেয়নেট দিয়ে খুঁচিয়ে ক্ষত-বিক্ষত করে একাত্তরের পরাজয়ের জ্বালা মিটিয়েছিল। প্রগতি-সমৃদ্ধির অগ্রগতি থেকে বাঙালিকে পিছিয়ে দিয়েছিল। ইতিহাসের এই নিষ্ঠুর হত্যাযজ্ঞের ঘটনায় শুধু বাংলাদেশের মানুষই নয়, স্তম্ভিত হয়েছিল সমগ্র বিশ্ব। কারাগারের নিরাপদ আশ্রয়ে থাকা অবস্থায় বর্বরোচিত এ ধরনের হত্যাকান্ড পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল।তিনি বক্তব্য কালে এ কথা বলেন

No comments:

Post a comment

Post Top Ad

Responsive Ads Here