শিক্ষকের খামখেয়ালিপনায় ছাত্রী মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে - মঠবািড়য়া সমাচার

শিরোনাম

Post Top Ad

Friday, 22 November 2019

শিক্ষকের খামখেয়ালিপনায় ছাত্রী মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে

মঠবাড়িয়া প্রতিনিধিঃ পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় স্বজনদের বক্তব্য,  মঠবাড়ীয়ার সদ্য ঘোষিত সরকারি হাতেম আলী বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের টেষ্ট পরীক্ষায় তিন বিষয়ে ফেল এমন কি বিজ্ঞানে ২ পাওয়া ছাত্রীকেও ফরম ফিলাপ করার সুযোগ দেয়ার রেফারেন্স ধরে অংকে ফেল করা একজন নাসরিন জাহান কলি ছাত্রী  পরীক্ষা দেয়ার  সুযোগ চাইতে গেলে অভিবাবকসহ  ছাত্রীকে অপমান করেন।বিষয়টি নিয়ে এসিল্যান্ড মহাদয়ের নিয়ে যাওয়া হয়। আসু ফলাফল না পেয়ে ডিসি মহাদয়ের সরনাপন্ন হই ডিসি মহাদয় এসিল্যান্ড মহাদয়েকে অন্যান্য ফেল কৃত ছাত্রীদের তথ্য সত্যতার ভিত্তিতে এবং প্রাক বাছনিক পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে ফরম ফিলাপের সুপারীশ দিলে এসিল্যান্ড মহাদয় মার্কসিটসহ প্রধান শিক্ষককে ডেকে পাঠান।
এবং ১৮ রোল,৮৭ ছাত্রী বিজ্ঞানে ২ পাওয়ার সত্যেও তার ফরম ফিলাপের প্রমান পাওয়া যায় এমন কি ৩ বিষয়ে ফেল ছাত্রীদেরও ফরম ফিলাপ করায় এই প্রমানের ভিত্তিতে এসিল্যান্ড মহাদয় ফরম ফিলাপের সুপারিশ দেয়।প্রধান শিক্ষক পরের দিন সকাল ৯ঘটিকায় ফরম ফিলাপের জন্য বিদ্যালয়ে যেতে বলে কিন্তু দুঃখের বিষয় প্রধান শিক্ষক ছলনা করে ঐ দিন রেল সচিবের নাম ভাঙ্গিয়ে ডিসি মহদয়ের কাছে ঐ পরীক্ষার্থীর পেপার নিয়ে যায় এবং ডিসি মহোদয়ের মাধ্যমে এসিল্যান্ড মহদয়কে পুন: পরীক্ষার সুপারিশ দিয়ে আদেশ পাঠান ফলে দুপুর ১:৩০মিনিটের দিকে এসিল্যান্ডের কার্যলয়ে পুন:পরীক্ষার কথা বললে গার্ডিয়ানরা পুন:পরীক্ষার জন্য সন্তাকে বুঝাতে থাকে।ঐ সময় থেকে বাচ্চাটি ভিষন মানসিক আঘাত পেয়ে বলতে থাকে যে স্যার আমার ফরম  ফিলাপ ঠেকাতে ডিসি স্যারের কাছে গিয়েছিলেন  সে কখনই আমাকে নিবেন না বরং কঠিন প্রশ্ন করে আমাকে ফেল করিয়ে আমার দুইটা পেপার নিয়ে জায়গায় জায়গায় দেখাবেন এরপর বাসায় এসে তার মাকে বলতে থাকে মা আমার জন্য চিন্তা কর না আমি তোমাদের বোঝা হব না।আমাকে একটা অংক বই দেও আমি শেষবারের মত পড়াটা পড়ি আর স্যারকে বলে দিও আমার অধিকার আদায়ের লড়াইয়ে হেরে স্যারকে জিতিয়ে দিয়ে গেলাম বলতে বলতে আত্নহত্যার চেষ্টার অতপর পরিবারের সকলে ধরাধরি করে প্রতিরোধ করলে এক পর্যায়ে বাচ্চাটি অজ্ঞান হয়ে পরে এবং হাতপায়ে খিচুনি ওঠে।পরিবারের সকলে এবং আত্নীয় স্বজন মিলে বাচ্চাটিকে মঠবাড়ীয়া সরকারি হসপিটালে ভর্তি করে।সে অস্থিরতা প্রকাশ করে এবং জীবনের প্রতি বেতৃষ্ণা প্রকাশ করে। নির্বাচনী পরীক্ষায় অকৃতকার্য সরকারি হাতেম আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এই শিক্ষার্থীর পারিবারিক এবং শারীরিক অবস্থা আমলে নিয়ে, সম্পূর্ণ  মানবিক বিবেচনায় তাঁকে ফর্ম ফিলাপের  মাধ্যমে  এস.এস.সি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও তাঁর পরিবার ফর্ম ফিলাপের টাকা যোগাড়ে ব্যর্থ হলে তাঁকে আর্থিক সহায়তায়ও প্রদান করা হবে। আজ সন্ধ্যায় পিরোজপুরের জেলা প্রশাসক জনাব আবু আলী মোঃ সাজ্জাদ হোসেন স্যার এর অনুমতিক্রমে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে  এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। 


No comments:

Post a comment

Post Top Ad

Responsive Ads Here