মঠবাড়িয়ার বড়মাছুয়া ইউনিয়ন আ‘লীগে সোহেলকে সাধারণ সম্পাদক দেখতে চান আ‘লীগ নেতা-কর্মিরা। - মঠবািড়য়া সমাচার

শিরোনাম

Post Top Ad

Saturday, 14 December 2019

মঠবাড়িয়ার বড়মাছুয়া ইউনিয়ন আ‘লীগে সোহেলকে সাধারণ সম্পাদক দেখতে চান আ‘লীগ নেতা-কর্মিরা।

মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার বড়মাছুয়া ইউনিয়নের প্রায়ত মুক্তিযোদ্ধা মো. রুহুল আমীন আকনের পুত্র জুলফিকার আমীন সোহেলকে ইউনিয়ন আ‘লীগের সাধারণ সম্পাদক দেখতে চান ইউনিয়ন আ‘লীগ নেতা-কর্মিরা। মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী পরিবারের সন্তান হিসেবে নবীনদের চেয়ে প্রবীনরা সোহেলকে ঘিরেই এলাকায় ব্যাপক আলোচনা করছেন। তবে দলে অনুপ্রবেশ কারীরা প্রকাশ্যে ও গোপনে তার বিরোধীতাও করছে।খোঁজ নিয়ে জানা যায়, আ‘লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ.ম রেজাউল করিম গত ০৩ ডিসেম্বর পিরোজপুরের নাজিরপুরে স্থানীয় আওয়ামীলীগের এক মতবিনিময় সভায় বলেছেন, ইউনিয়ন-ওয়ার্ড পর্যায়ে আওয়ামীলীগের নবীন ও প্রবীনদের সমন্বয়ে কমিটিগুলো গঠন করা হবে। এমন ঘোষণার পর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান জুলফিকার আমীন সোহেল বড়মাছুয়া ইউনিয়নের সকল পর্যায়ের নেতা-কর্মি ও সমর্থকদের সহযোগিতা চাচ্ছেন।খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, তিনি (১৯৯৫-৯৭ ইং) বড় মাছুয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়কের দায়িত্ব পালন করেছেন। (১৯৯৮-০৪ ইং) জাতিয় রিক্সা শ্রমিক লীগের ঢাকা মিরপুর থানার সদস্য। (২০০৫-০৮ ইং) মঠবাড়িয়া উপজেলা স্বেচ্ছা সেবক লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। বর্তমানে পৌর যুবলীগের সদস্য, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের আইন বিষয়ক সম্পাদক ও বড়মাছুয়া ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সদস্য হিসেবে দায়িত্বে রয়েছেন।উপজেলা আ‘লীগের বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ, প্রবীন আ‘লীগ নেতৃবৃন্দ ও মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে কথা বললে তারা জানান, জুলফিকার আমীন সোহেল একজন প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী পরিবারের সন্তান। তাকে নিয়ে কোন বিতর্ক নেই।এব্যপারে জুলফিকার আমীন সোহেল বলেন, আমি বড়মাছুয়া ইউনিয়ন আ‘লীগের প্রতিষ্ঠাতা পরিবার ও একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান। ওয়ারিশ হিসেবে তিনি আওয়ামীলীগের রাজনীতি করে আসছেন। ইউনিয়ন-ওয়ার্ড পর্যায়ে আওয়ামীলীগের নবীন ও প্রবীনদের সমন্বয়ে কমিটিগুলো গঠন করতে হবে। প্রধানমন্ত্রীর এমন ঘোষণার পরেই তিনি রাজনীতিতে বেশী সক্রিয় হয়ে ইউনিয়নের আ‘লীগ ও বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দদের সাথে দেখা-স্বাক্ষাৎ ও মত বিনিময় করে যাচ্ছেন।তিনি আরও বলেন, আমার পিতার আলোয় আমি আলোকিত। দল থেকে কখনই সরে যেতে পারব না। অনুপ্রবেশ কারিরা হয়তো এক সময় সরে যাবে এটা বুঝেই প্রবীন আ‘লীগ নেতা-কর্মিরা আমাকে সাধারণ সম্পাদক পদে চান। সম্মানিত কাউন্সিলর ও দল তাকে সঠিক মূল্যায়ন করবেন বলে তিনি আশা করছেন। তিনি ইউনিয়ন আ‘লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হলে আ‘লীগের সঠিক ধারার রাজনীতির মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ শেখ হানিসার হাতকে আরও শক্তিশালী করার লক্ষে কাজ করবেন।উপজেলা আ‘লীগ সাধারণ সম্পাদক মো. আজিজুল হক সেলিম মাতুব্বর বলেন, জুলফিকার আমীন সোহেল মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী পরিবারের সন্তান হিসেবে ইউনিয়ন আ‘লীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ চাইতেই পারে।

No comments:

Post a comment

Post Top Ad

Responsive Ads Here