মঠবাড়িয়ায় একটি পরিবারকে হয়রানির অভিযোগ - মঠবািড়য়া সমাচার

শিরোনাম

Post Top Ad

Tuesday, 7 April 2020

মঠবাড়িয়ায় একটি পরিবারকে হয়রানির অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার উপজেলার উত্তর গিলাবাদ গ্রামে একটি দিনমজুর পরিবারকে স্থানীয় নারী ইউপি সদস্যা রিনা বেগম ও প্রতিবেশী মোস্তফা হাওলাদার নানাভাবে হয়রানি করছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে ওই পরিবারটির লোকজন নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছেন।ভুক্তভোগী ও এলাকাবাসী সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার উত্তর গিলাবাদ গ্রামের শাহজাহান হাওলাদারের ছেলে শাহাদাত হোসেন টমটমে মালামাল পরিবহন করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছে। শাহাদাতের স্ত্রী ও দুই সন্তান রয়েছে। সম্প্রতি প্রতিবেশী মোস্তফা হাওলাদার ও তার ছেলে আরমান শাহাদাতের বিরুদ্ধে আপত্তিকর অভিযোগ তুলে শাহাদাতকে মারধরের চেষ্টা চালায়। এসময় শাহাদাতের মা কহিনুর বেগম বেগম (৫৫) ছেলেকে বাঁচাতে গেলে তাকে পিটিয়ে আহত করে। বিষয়টি স্থানীয় নারী ইউপি সদস্যা রওশনারা রিনা জানতে পেরে উভয় পক্ষকে তার বাসায় খবর দেন। খবর পেয়ে উভয় পক্ষের লোকজন নারী ইউপি সদস্যার কাছে যান। গত ২৮ মার্চ ২০২০ ইং তারিখ ইউপি সদস্যা রিনা বেগম উভয়পক্ষকে নিয়ে তার বাড়িতে সালিস বৈঠকে বসেন। উভয় পক্ষের বক্তব্য শুনে সাদা কাগজে ও একটি সাদা রেফ কাগজে উভয় পক্ষের স্বাক্ষর গ্রহণ করেন। পরে তিনি শাহজাহানের ছেলে শাহাদাতকে অভিযুক্ত করে এক লাখ পনের হাজার টাকা জরিমানার আদেশ দেন। উক্ত জরিমানার টাকা জোগার করে ২ এপ্রিলের মধ্যে তার কাছে জমা দিতে বলেন। এদিকে বাড়িতে এসে ওই রাতেই লোকলজ্জায় শাহাদাত বিষপান করে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়। পরে স্বজনরা শাহাদাতকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। বর্তমানে শাহাদাত সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে।এব্যাপারে দাউদখালী ইউনিয়নের নারী সদস্যা রওশনারা রিনা জানান, আমি সালিস বৈঠকের আয়োজন করেছিলাম। কিন্তু কোন জরিমানার আদেশ দেইনি। স্থানীয় ইউপি সদস্য রেজওয়ান সিকাদার জানান, আমি শুনেছি মেয়ে ঘটিত একটি ব্যাপারে সালিস বৈঠক করে মহিলা ইউপি সদস্যা রিনা বেগম শাহাদাতের পরিবারকে এক লাখ পনের হাজার টাকা জরিমানা করেছিল। পরে শাহাদাত বিষপান করে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়। খবর পেয়ে শাহাদাতকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠাই। পরবর্তীতে বিষয়টি নিয়ে মোস্তফা হাওলাদার থানায় অভিযোগ দেয়।শাহজাহান হাওলাদার অভিযোগ করেন, প্রতিবেশী মোস্তফা হাওলাদার মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে আমার ছেলে ও আমার পরিবারকে হয়রানি করে আসছে। আমরা তাদের ভয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। মঠবাড়িয়া থানার এসআই শহিদুল ইসলাম জানান, উত্তর গিলাবাদ গ্রামের মোস্তফা হাওলাদারের মেয়ে তামন্না আক্তার একটি অভিযোগ করেছিল। অভিযোগের বিষয়টি সরেজমিন তদন্ত করে অভিযোগের সাথে বাস্তবতার মিল পাওয়া যায়নি।

No comments:

Post a comment

Post Top Ad

Responsive Ads Here