প্রতিবন্ধী স্বামী ও সন্তানদের জিম্মি করে গৃহবধূকে একাধিক বার ধর্ষণ করে - মঠবািড়য়া সমাচার

শিরোনাম

Post Top Ad

Wednesday, 17 June 2020

প্রতিবন্ধী স্বামী ও সন্তানদের জিম্মি করে গৃহবধূকে একাধিক বার ধর্ষণ করে

প্রতিবন্ধী স্বামী ও সন্তানদের জিম্মি করে গৃহবধূকে একাধিক বার ধর্ষণ করে
প্রকাশের সময় : জুন, ১৭, ২০২০, ১২:০২ পূর্বাহ্ণ
স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার দাউদখালী ইউনিয়নে দুই সন্তানের জননী এক গৃহবধূকে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা হয়েছে। নির্যাতিত গৃহবধূ বাদী হয়ে সালাম গাজী (৪৫) ও সাইফুদ্দিন কাজী (৩৫) নামের দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করেন। মামলা সূত্রে জানাগেছে, নির্যাতিতা গৃহবধূর স্বামী প্রতিবন্ধী। এই সুযোগে একই গ্রামের মৃত আক্তার গাজীর ছেলে দাউদখালী নূরজাহান মেমোরিয়াল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরী সালাম গাজী এবং মান্নান কাজীর ছেলে দাউদখালী (ডিগ্রী) ফাজিল মাদরাসার নাইটগার্ড সাইফুদ্দিন কাজী ওই গৃহবধূকে দীর্ঘদিন ধরে অনৈতিক প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। গৃহবধূ অনৈতিক প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় দুই লম্পট গত ২৭ মে কৌশলে তার ঘরে প্রবেশ করে প্রতিবন্ধী স্বামী ও দুই শিশু সন্তানকে জিম্মি করে গৃহবধূকে পাশের বারান্দায় নিয়ে সালাম গাজী জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। এ সময় সাইফুদ্দিন কাজী ঘটনাস্থলের পাশে দাঁড়িয়ে পাহাড়া দেয়। এক পর্যায়ে গৃহবধূ জোর জবরদস্তি করে মুখ থেকে হাত ছাড়াইয়া ডাকচিৎকার দিলে বাড়ির অন্য লোকজন ছুটে এলে দুই লম্পট পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে ১ জুন উক্ত লম্পটরা আবারো ওই নারীর ঘরে কৌশলে প্রবেশ করে সালাম গাজী ওই গৃহবধূর মুখ চেপে ধরে বারন্দায় নিয়ে ধর্ষণ করে। দস্তাদস্তির এক পর্যায়ে ঘরের লোকজন ঘুম থেকে জেগে বৈদ্যুতিক আলো জ্বালালে লম্পট সালাম গাজী ও সাইফুদ্দিন কাজীকে দেখতে পেলে তারা বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখিয়ে চলে যায়। এঘটনায় গত ৭ জুন ওই নির্যাতিতা গৃহবধূ বাদী হয়ে মাঠবাড়িয়া থানায় লম্পটদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। এদিকে ঘটনা জানাজানির পরে দাউদখালী নূরজাহান মেমোরিয়াল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অভিভাবক, শিক্ষার্থীদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।  নির্যাতিতা গৃহবধূ বলেন, সালাম গাজী ও সাইফুদ্দিন কাজী আমার ঘরে ঢুকে আমার দুই শিশু সন্তান এবং আমার প্রতিবন্ধী স্বামীকে জিম্মি করে আমাকে দুই দফায় ধর্ষণ করে। তাদের পা ধরে ইজ্জত ভিক্ষা চাইলে তারা সন্তানদের এবং স্বামীকে হত্যার ভয় দেখায়। িিিিিিিিিিিিিিিিিিিিিিিিিিিিিিিিিিিি এ বিষয়ে জানতে চাইলে মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আ. জ. মো. মাসুদুজ্জামান বলেন, ‘এ ঘটনায় গৃহবধূ বাদী হয়ে দুইজনকে আসামী করে একটি মামলা করেছেন। বিস্তারিত জানার জন্য মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সজল ইসলামের সাথে কথা বলতে পারেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সজল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি মুঠোফোনে জানান, মামলাটি তদন্তাধীন রয়েছে। আসামী পলাতক থাকায় গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। আসামী গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

No comments:

Post a comment

Post Top Ad

Responsive Ads Here